মণিরামপুরে খেজুরগাছ থেকে পড়ে সন্ন্যাসীর মৃত্যু

আপডেট: 08:04:18 15/04/2017



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার তালার পর এবার যশোরের মণিরামপুরে চড়কপূজায় খেজুর ভাঙতে উঠে গাছ থেকে পড়ে এক সন্ন্যাসীর মৃত্যু হয়েছে। তার নাম রমেশ দাস (৩০)। তিনি উপজেলার শ্যামকুড় ইউনিয়নের চিনাটোলা গ্রামের গণেশ দাসের ছেলে।
শ্যামকুড় ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আবুল কালাম জানান, শুক্রবার সন্ধ্যার আগে চড়ক পূজার সন্ন্যাসী রমেশ অন্যদের সঙ্গে খেজুর ভাঙতে নির্ধারিত গাছে ওঠেন। এরপর তিনি সেখান থেকে পড়ে গুরুতর আহত হন। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে যশোর কুইন্স হসপিটালে নিলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
তবে ইউনিয়নটির চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘রাত সাড়ে ৮টার দিকে রমেশ যশোর জেনারেল হাসপাতালে মারা যান। তার লাশ নিয়ে রাত ১২টার দিকে বাড়িতে ফিরি।’
এদিকে শুক্রবার সন্ধ্যার আগে খেজুর ভাঙতে উঠে গাছ থেকে পড়ে উপজেলার দেবীদাসপুর গ্রামের নীলকমল চক্রবর্তীর ছেলে সন্ন্যাসী বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী (৩০) ও শহরের তাহেরপুর এলাকার সুপদ মণ্ডলের ছেলে সন্ন্যাসী মিলন মণ্ডল (২২) আহত হয়েছেন। আহত দুই জনেরই একটি করে হাত ভেঙেছে। এদের মধ্যে বিশ্বজিৎ মণিরামপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন বলে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মাহমুদুল ইসলাম জানান।
এদিকে, শহরের মোহনপুর এলাকার সন্ন্যাসী বিপ্লব কুণ্ডু বলেন, ‘চড়কপূজায় খেজুর ভাঙতে যেদিন গাছে উঠতে হয় সে দিন সকাল থেকে কিছুই খাওয়ার নিয়ম নেই; এমনকী জলও না। যারা গোপনে কিছু আহার করে বা ধূমপান করে তারা গাছে উঠলে দেবতারা তাদের ছুড়ে ফেলে দেবেনই।’
সন্ন্যাসী বিপ্লবের দাবি, পড়ে গিয়ে হতাহতরা অবশ্যই গাছে ওঠার আগে কিছু না কিছু খেয়েছে। তাছাড়া এমনটি হবার নয়।

আরও পড়ুন