ভাতের গন্ধে বমি পায় ইয়াসিনের

আপডেট: 08:38:37 18/09/2019



img

চন্দন দাস, বাঘারপাড়া (যশোর) : ভেতো বাঙালির ঘরে জন্ম, অথচ ইয়াসিন মোটেও সহ্য করতে পারে না ভাতের গন্ধ! ভাবা যায়?
ঘটনা কিন্তু সত্যি।  কৃষক পরিবারে জন্ম ইয়াসিনের (১৩); এখন মাদরাসায় সে ক্লাস এইটে পড়ে।  তার বাবা দিনমজুর নূরুজ্জামান।  বাড়ি যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার বাসুয়াড়ি ইউনিয়নের আলাদীপুরে। 
তার বাবা জানান, খুব ছোটবেলায় যখন সে খাবার খাওয়ার মতো, তখন মুখে ভাত দিলেই ওয়াক ওয়াক করে বমি করে দিতো।  এখন পর্যন্ত সে ভাত না খেয়েই থাকে!
ইয়াসিনের খাদ্যতালিকায় রয়েছে সকালে মিষ্টির রস কিংবা ডাল দিয়ে দুটি পরোটা, দুপুরে সিঙাড়া-পুরি ও মুড়ি।  রাতে ছোলার সঙ্গে মুড়ি কিংবা পিঠা।  মাছ ছুঁয়ে দেখে না কখনো।  আর মাংস খেতে পারে না ছোট এক টুকরোর বেশি। 
ভাত না খেয়েও সুস্থ আছে তার ছেলে।  দু-একবার সর্দি-কাশি  হয়েছে; তবে বড় ধরনের অসুখ হয়নি কখনো।
দুইবোন আর এক ভাইয়ের মধ্যে সে সবার ছোট।  তার মা কাজল বেগম একটি চাতালে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন।  
মাদরাসা সুপার কামরুল ইসলাম জানান, ইয়াসিন লেখাপড়ায় ভালো, ক্লাসে অমনোযোগীও নয়।  তার ভাত না খাওয়ার বিষয়টি এলাকাবাসীর অজানা নয়।
তাদের প্রতিবেশী রেনু বেগম বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই দেখছি ছেলেটা ভাত খায় না।  ওর জন্য খুব কষ্ট করে বাবা-মা। ’
মা কাজল বেগম বলেন, ‘ছেলেকে ছোটবেলা থেকে ভাত খাওয়ানোর অনেক চেষ্টা করেছি।  কিন্তু পারিনি।  জোর করে খাওয়ানোর চেষ্টা করলে অসুস্থ হয়ে পড়ে। মুখে ভাত দিলেই কথা বন্ধ হয়ে যায়।  যেকারণে এখন আর চেষ্টা করি না।  ’
ইয়াসিন জানায়, ভাত না খেলে তার কোনো সমস্যা হয় না।  ভাতের ঘ্রাণ সে সহ্য করতে পারে না।  বমি আসে। 
এসব বিষয়ে কথা হয়, বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. গৌতম আচার্যের সঙ্গে।   তিনি বলেন, ‘ভাত না খেয়ে বেঁচে থাকা অস্বাভাবিক বা অবিশ্বাস্য কিছু নয়।  এটা তার অভ্যাসের ব্যাপারমাত্র। ’

আরও পড়ুন