প্রতিবন্ধী কিশোরীর ধর্ষক ১১ বছর পর গ্রেফতার

আপডেট: 03:24:37 11/01/2017



img

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরায় ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি আইয়ুব হোসেনকে (৫০) বুধবার ভোরে শ্রীপুর উপজেলার জোকা গ্রাম থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
২০০৬ সালে ২৮ নভেম্বর মাগুরা নারী ও শিশু নির্যাতন বিশেষ ট্রাইবুনালের বিচারক কাদের নেওয়াজ এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ধর্ষণে দায়ী প্রমাণিত হওয়ায় আইয়ুব হোসেনকে যাবজ্জীবন সাজা ভোগের আদেশ দেন।
শহরের নিজনান্দুয়ালী এলাকায় ২০০৫ সালে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে আইয়ুব হোসেন পলাতক ছিলেন।
সদর থানার এসআই মিলন হোসেন ও মামলার বাদী নির্যাতিতার মা অভিযোগ করেন, ২০০৫ সালের জানুয়ারি মাসের প্রথম দিকে তার প্রতিবন্ধী মেয়ে শহরের নিজনান্দুয়ালী এলাকায় এক প্রতিবেশীর বাড়িতে গরুর খাবার আনতে গেলে আইয়ুব হোসেন তাকে ধারালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে ও ৫ মাস পর ঘটনা জানাজানি হয়। এ সময় মেয়েটির কাছ থেকে ঘটনা জেনে একটি বেসরকারি সংস্থার আইনি সহায়তায় আদালতে মামলা দেন।
এই মামলায় বিচারক আইয়ুব হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড, ধর্ষণের ফলে জন্ম নেওয়া কন্যাশিশুর বাবার স্বীকৃতিসহ ভরণ-পোষণ নির্বাহের আদেশ দেন। এ রায়ের দীর্ঘ ১১ বছর পর পলাতক আইয়ুব হোসেনকে শ্রীপুর থানা পুলিশের সহায়তায় মাগুরা সদর থানা পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।
আইয়ুব হোসেন গ্রেফতার হওয়ায় নির্যাতিতার মা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে শিশুর ভরণ-পোষণের জন্যে আইয়ুব হোসেনের প্রতি আদালতের যে আদেশ আছে তা এখনো পর্যন্ত কার্যকর হয়নি দাবি করে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।