ইয়াবা কিনতে গিয়ে ধরা পুলিশ কর্মকর্তা ক্লোজড

আপডেট: 08:04:15 10/06/2018



img

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গায় ইয়াবা সেবনের অভিযোগে জামজামি পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই সুজনকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।
অভিযোগ, শনিবার রাত আটটার দিকে সুজন নির্ধারিত ডিউটি না করে পাশের কুষ্টিয়া জেলার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার নৃসিংহপুর গ্রামের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী জয়ের কাছে যান। জয়ের কাছ থেকে ২১টি ইয়াবা ট্যাবলেট নেন তিনি। কিন্তু দাম নিয়ে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন তারা। বিষয়টি জানাজানি হলে আশেপাশের মানুষ ঘটনাস্থলে ভিড় জমায়। সে সময় এএসআই সুজন গ্রামবাসীর সঙ্গেও বিতণ্ডায় জড়ান। ফলে উত্তেজিত গ্রামবাসীর তোপের মুখে পড়েন তিনি। গ্রামবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার মনোহরদিয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ ঘটনাস্থলে যান। এএসআই সুজনকে ওই অবস্থায় দেখে তিনি জামজামি ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই অচিন্ত্যকে খবর দেন। এসআই অচিন্ত্য সবকিছু জেনে বিষয়টি আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফকরুল আলম খানকে অবহিত করেন। তিনি বিষয়টি জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানান। পরে অভিযুক্ত এএসআই সুজনকে তখনই চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়।
মনোহরদিয়া ক্যাম্পের এএসআই আশিক বলেন, ‘বর্তমানে সারা দেশে মাদকের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক অভিযান চলছে। এমন পরিস্থিতিতে যদি খোদ পুলিশের বিরুদ্ধে মাদক সেবনের অভিযোগ ওঠে তাহলে আমাদেরও কাজ করা কঠিন হবে। বিষয়টি সে কারণে জামজামির ফাঁড়ি ইনচার্জকে অবহিত করেছি।’
জামজামি ফাঁড়ি পুলিশের এসআই অচিন্ত্যর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি তথ্য দিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন। তবে তিনি জানান, আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জের নির্দেশে এএসআই সুজনকে রাত আনুমানিক রাত দশটার দিকে সিসি দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন